মন্ত্রীর সীল-স্বার নিয়ে জাল-জালিয়াতি, অপ্রতিরোধ্য এক সলু

সারাদেশ সিলেটের সংবাদ

ডেস্ক নিউজ::জাল- জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে টেলিভিশন চ্যানেল সহ বিভিন্ন গুরুত্বপুর্ন প্রতিষ্ঠানের চাকুরী পাওয়ার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন সলু নামের সাংবাদিক পরিচয় দানকারী এক ব্যক্তি । এমনকি মন্ত্রীর সীল সাক্ষর জাল করতেও দ্বিধাবোদ করছেন না তিনি।

পড়ালেখা গন্ডি ‘হাইস্কুল’ পেরোয়নি তার। এর মধ্যে ব্যক্তিগত তথ্যে সিভি তে দিয়েছেন তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএসসি পাস করেছেন ১৯৯৪ ইংরেজিতে। এইচএসসি, এসএসসিও ঢাকা শিাবোর্ডের অধীনে পাস করেছেন। শিাগত যোগ্যতার এসব সার্টিফিকেটও প্রস্তুত করেছেন তিনি।

ইংরেজিতে সিভি তৈরী করে সিলেট প্রতিনিধি হওয়ার জন্য আবেদন করেন বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল ইটিভিতে। ঘটনাটি ২০১০ সালের ২১ অক্টোবরের ।

তার আবেদনে সুপারিশ দেখানো হয় তৎকালীন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মো. কামরুল ইসলাম এমপির।

অনুসন্ধানে উঠে আসে শিাগত যোগ্যতা, সার্টিফিকেট, মন্ত্রীর সুপারিশ, স্বার এসবই ভূঁয়া। প্রতিমন্ত্রী এ বিষয়ে কিছুই জানেন না।

সিলেটের সংবাদ অনলাইন নিউজ পোর্টালের সাথে সম্পৃক্ত ওই ব্যক্তি নাম হচ্ছে সলিম আহমদ সলু। তিনি নগরীর সোনারপাড়া এলাকার নবারুন-১৪২’র বাসিন্দা আবদুল খালিকের ছেলে।

সম্প্রতি ওই অনলাইনে প্রতিহিংসা মূলক ভাবে অন্যের বিরুদ্ধে কল্পকাহিনী দিয়ে সাজানো সংবাদ প্রকাশের পর কিছু মানুষ তার অপতৎপরতা ও শিাগত যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেন।

সলিম আহমদ সলুর ঘনিষ্ঠদের কাছ থেকে জানা যায় শিবগঞ্জ সোনারপাড়াস্থ মামার বাড়ী তিনি পড়ালেখা করেছেন। মামার বাড়ীর লোকজনের সাথে কথা হলে ফয়েজ উল কয়েস নামের একজন শ্যামল সিলেটকে বলেন, ‘সে (সলু) তো ভালোভাবে মেট্রিকও পাস করেনি, আবার বিসিএস’।

শুধু তাই নয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও অনেকের নামে ভূঁয়া অ্যাকাউন্ট খুলার অভিযোগ রয়েছে সলিম আহমদ সলুর বিরুদ্ধে।

শ্যামল সিলেটের অনুসন্ধানে যার সত্যতা পাওয়া গেছে। সিসিকের ২২ নং ওয়ার্ডের সাবেক কমিশনার শফিকুর রহমান চৌধুরীর নামে নকল ফেসবুক আইডিও খুলে বিভিন্নজনকে উল্টা পাল্টা কমেন্ট করেত দেখা গেছে সলুকে। এ ব্যপারে শফিকুর রহমান চৌধুরী থানায় সাধারণ ডায়েরী করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
এছাড়াও স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিম হোসাইন নিজের মামা, মামা শ্বশুর হিসেবেও পরিচয় দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

ইটিভির চ্যানেলের সিলেট প্রতিনিধি হওয়ার সেলিম আহমদ সলুর আবেদনপত্রে সাবেক আইন প্রতিমন্ত্রী, বর্তমান খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট মো. কামরুল ইসলাম শীল মোহর ও স্বার করছেন কিনা জানতে চাইলে খোদ মন্ত্রী জানান, এই নামের কোনো ব্যক্তিকে আমি চিনিনা। এটা ভূঁয়া।

সিলেটে কোনো ভাগ্না আছে কিনা জানতে চাইলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিম হোসাইন শ্যামল সিলেটকে বলেন, সিলেটে বোন বিয়ে দিলেতো ভাগ্না হবে। সিলেটে আমার কোনো ভাগ্নে নেই।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *